সরকার সরাতে জনগণকে নিয়ে রাজপথে ফয়সালা: ফখরুল

জ্বালানির দলের মূল্য বৃদ্ধিতে সরকারের কঠোর সমালোচনা করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধিতে আজকে সারা দেশে যানবাহন কমে গেছে। আমাদের অর্থনীতিতে এর প্রভাব পড়েছে। সাধারণ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হবে। পরিবহন খরচ বাড়বে। নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য সামগ্রীর মূল্য দিগুণ থেকে তিনগুণ হবে। এমন অবস্থায় প্রকাশ্যে ঘোষণা দিয়ে এই সরকারকে সরাতে জনগণের কাছে যাচ্ছি, জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করে রাজপথে ফয়সালা হবে।
 
শনিবার (৬ জুলাই) দুপুরে ভোলা জেলা ছাত্রদলের সভাপতি নূরে আলম ‘হত্যার’ প্রতিবাদে না পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনের সড়কে অনুষ্ঠিত ‘ছাত্রসমাবেশে’ তিনি একথা বলেন। জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের সমাবেশের আয়োজন করে।
 
মির্জা ফখরুল বলেন, জ্বালানি বিদ্যুৎ মন্ত্রী বলেছিলেন, সামান্য একটু দাম বাড়ানো হবে সহনীয় পর্যায়ে। কিন্তু এখন অনেক দাম বাড়ানো হয়েছে। মানুষের উপর অত্যাচার নির্যাতন শুরু হয়ে গেছে মানুষ আজ দিশেহারা। আজকে কাঁচামরিচের কেজি ৩০০ টাকা। এক নারী বলছেন, এটা মরার ওপর খাড়ার ঘা।
 
সকলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন, আর সময় নেই এখন জেগে উঠতে হবে সকল রাজনৈতিক দলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে ছাত্রসমাজকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। ঐক্যবদ্ধ হয়ে এই সরকারকে পরাজিত করতে হবে। দুর্বার গণ আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। এক দফা এক দাবি সরকারের পদত্যাগ চেয়ে স্লোগান দিয়ে সমাবেশে বক্তব্য শেষ করেন মির্জা ফখরুল।
 
ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েলের সঞ্চালনায় এবং ছাত্রদলের সভাপতি কাজী রওণকুল ইসলাম শ্রাবণের সভাপতিত্বে ছাত্র সমাবেশে অন্যদের মধ্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক আব্দুস সালাম, উত্তরের আহ্বায়ক আমানুল্লাহ আমান, সদস্য সচিব আমিনুল হক, সাবেক ছাত্রনেতা শামসুজ্জামান দুদু, ড. আসাদুজ্জামান রিপন, খায়রুল কবির খোকন, ফজলুল হক মিলন, শহিদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, এবিএম মোশাররফ হোসেন, কামরুজ্জামান রতন, তাইফুল ইসলাম টিপু, সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, মোনায়েম মুন্না, আজিজুল বারী হেলাল, শহিদুল ইসলাম বাবুল, হাবিবুর রশিদ হাবিব, আকরামুল হাসান মিন্টু প্রমুখ বক্তব্য দেন।

সর্বশেষ সংবাদ

রাজনীতি এর আরো খবর