খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার তেমন উন্নতি নেই: চিকিৎসক

বসুন্ধরায় এভারকেয়ার হাসপাতালের ‘ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ)’ চিকিৎসাধীন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার তেমন কোনো উন্নতি হয়নি। তাকে সার্বক্ষণিক চিকিৎসকদের নিবিড় পর্যবেক্ষণেই থাকতে হচ্ছে। দেওয়া হচ্ছে নরম খাবার। আর সবসময় তার পাশে থাকছেন প্রয়াত ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী সৈয়দা শর্মিলা রহমান সিঁথি। রোববার সন্ধ্যায় খালেদা জিয়ার অসুস্থতার বিষয়ে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন বলেন, ম্যাডাম লিভার, কিডনি ও হার্টের জটিলতায় ভুগছেন। রয়েছে ডায়াবেটিকও। ম্যাডামের অবস্থা আগের মতোই আছে। খুব একটা পরিবর্তন নেই। এটাকে উন্নতিও বলা যাবে না, আবার স্থিতিশীলও বলা যাবে না। এক কথায় বলা যেতে পারে- এখনো তিনি ক্রিটিক্যাল অবস্থার মধ্যেই আছেন। ডাক্তাররা সার্বক্ষণিক ক্লোজড মনিটিরিং করছেন। তার বিভিন্ন প্যারামিটারসগুলো উঠানামা করছে সেই অনুযায়ী ডাক্তারা তাৎক্ষণিক দেখে যথাযথ ব্যবস্থা নিচ্ছেন। তিনি বলেন, ম্যাডামের এখন যে অবস্থা তাতে মাল্টি ডিসেপ্লানারিং ডিজিজগুলোর প্রোপার রেসপন্স করতে হলে দ্রুত এডভান্স সেন্টারে নিয়ে চিকিৎসা করা অতি জরুরি হয়ে পড়েছে। যেটা নিয়ে এভারকেয়ার হাসপাতালের মেডিকেল বোর্ড বলুন, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য থেকে অনলাইনে যুক্ত হওয়া বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা বলুন- সবাই উদ্বিগ্ন। সকলে বলছেন, তাকে দ্রুত বিদেশে নেওয়া প্রয়োজন। এদিকে চিকিৎসকদের এরকম তাগিদের পরিপ্রেক্ষিতে সম্প্রতি পঞ্চমবারে মতো খালেদা জিয়ার ছোট ভাই শামীম এস্কান্দার সরকারের কাছে বিদেশে নেওয়ার অনুমতি চেয়ে আবেদন করেছেন । ৭৬ বছর বয়সী খালেদা জিয়া বহু বছর ধরে আর্থ্রাইটিস, ডায়াবেটিস, কিডনি, ফুসফুস, চোখের সমস্যাসহ নানা জটিলতায় ভুগছেন। এর আগে গত ১৩ নভেম্বর খালেদা জিয়াকে অসুস্থ অবস্থায় এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ভর্তির পরপরই তাকে সিসিইউতে নিয়ে যাওয়া হয়। তিনি হাসপাতালটির হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. শাহাবুদ্দিন তালুকদারের তত্ত্বাবধায়ন রয়েছেন। এছাড়া তার চিকিৎসার জন্য ১০ সদস্যের একটি মেডিকেল বোর্ডও করা হয়েছে। ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে খালেদা জিয়া কেন্দ্রীয় কারাগারে দুই বছর বন্দি ছিলেন। পরে পরিবারের আবেদনে গত বছরের ২৫ মার্চ সরকারের নির্বাহী আদেশে তার সাজা স্থগিত করে তাকে মুক্তি দেওয়া হয়। কারাগার থেকে অসুস্থতা নিয়ে মুক্তির পর এই পর্যন্ত খালেদা জিয়া তিন বার এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি হন।

রাজনীতি এর আরো খবর