সংবাদ সম্মেলন
ধর্মঘটে পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের সম্পৃক্ততা নেই

দেশের বিভিন্ন জায়গায় বিএনপি’র গণ সমাবেশের আগে যে পরিবহন ধর্মঘট করা হচ্ছে তার সঙ্গে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের এমনকি সাধারণ শ্রমিক মালিকদের কোন ধরনের সম্পর্ক নেই। সরকার নিজে ধর্মঘট ডেকে এবং স্থানীয়ভাবে পুলিশ ও সরকারদলীয় ক্যাডারদের ব্যবহার করছে। সোমবার (৭ নভেম্বর) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের নেতৃবৃন্দ এসব কথা বলেন। সংবাদ সম্মেলনের শ্রমিক ফেডারেশনের ভাইস প্রেসিডেন্ট, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার একান্ত সরকারি এডভোকেট শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস বলেন, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ও তথ্যমন্ত্রী হাসান মাহমুদ বিভিন্ন বিভাগের বিএনপি’র সমাবেশ কে কেন্দ্র করে অবৈধ পরিবহন ধর্মঘটের বিষয়ে আমাকে জড়িয়ে মিথ্যা অপবাদ ও অসত্য বক্তব্য দিচ্ছেন। এই সরকারের ফ্যাসিবাদী মনোভাব আর দখল দৈত্যের কারণে দেশের সব প্রতিষ্ঠান প্রায় ধ্বংস হয়ে গেছে। বিএনপি সহ দেশের মানুষ তাই রাস্তায় নেমে এসেছে। বিএনপি’র বিভাগীয় সমাবেশের আগে সরকার নিজে ধর্মঘট ডেকে এবং স্থানীয়ভাবে পুলিশ ও সরকার দলীয় ক্যাডারদের ব্যবহার করছে। যে ধর্মঘট করা হচ্ছে তার সঙ্গে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের, এমনকি সাধারণ শ্রমিক মালিকদের কোন সম্পর্ক নেই। তিনি বলেন, সরকারের জোরপূর্বক এই ধর্মঘটের কারণে দেশের সাধারণ মানুষ সীমাহীন দুর্ভোগে পড়েছেন। প্রয়োজনে এক এলাকা থেকে অন্য এলাকাতে মানুষ যেতে পারেনি। এমনকি সংখ্যা পণ্য রোগী নিয়েও হাসপাতালে যেতে পারেনি স্বজনরা তাই এই ধর্মঘট গণমানুষের বিপক্ষে কাজ করেছে। শিমুল বিশ্বাস বলেন, এই রাজনৈতিক ধর্মঘটের কারণে আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে পরিবহন মালিক ও শ্রমিকরা। রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ধর্মঘট চায় না তারা। ক্ষমতাসীন দেশ চাপের মুখে ও দমন-পীড়নে নিরুপায় তারা। সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন ভাইস প্রেসিডেন্ট এম জেনারেল ইসলাম, শাহাবুদ্দিন রেজা ও হুমায়ুন কবির খানসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সর্বশেষ সংবাদ

সংগঠন এর আরো খবর