কলকাতায় বাংলাদেশ উপদূতাবাসের সামনে গুলি, নিহত ২

ভারতের কলকাতার পার্ক সার্কাসে অবস্থিত বাংলাদেশ উপদূতাবাসের সামনে এলোপাতাড়ি গুলিবর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার (১০ জুন) দুপুরে এ ঘটনায় এক নারী নিহত হয়েছেন। ১০ থেকে ১২ রাউন্ড গুলি ছোঁড়ার পর হামলাকারী পুলিশ সদস্য নিজের গলায় গুলি চালিয়ে আত্মঘাতী হন। হামলাকারী ওই পুলিশ সদস্যের নাম- ছোটুপ লেপটা। চার দিন আগে তিনি উপদূতাবাসের সামনে আউটপোস্টে নিরাপত্তার দায়িত্বে পালন করতে শুরু করেন। কলকাতার পুলিশ কর্মকর্তারা প্রাথমিকভাবে ধারণা করছেন, ছোটুপ হয়তো মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন। উপদূতাবাসের কাউন্সিলর (কনস্যুলার) বশির উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেন। নিরাপত্তার ঘেরাটোপে থাকা এলাকায় কী করে এমন ঘটনা ঘটলো তা নিয়ে ক্ষোভ জানিয়েছে বাংলাদেশ উপদূতাবাস। কাউন্সিলর বশির উদ্দিন জানান, কলকাতা পুলিশ পরে ব্রিফ করে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানাবে। বাংলাদেশে উপহাইকমিশনের পাশের রাস্তায় হাইকমিশনের ওই নিরাপত্তা কর্মী প্রথমে এক স্কুটি আরোহী নারীকে গুলি করে। ঘটনাস্থলে ওই নারী মারা যান। স্কুটির চালক আহত হন। পরে ওই নিরাপত্তা কর্মী আরও আট রাউন্ড গুলি চালায়। ঘটনাস্থলেই তিনি আত্মঘাতী হন। আত্মঘাতী ওই পুলিশ সদস্য ঘটনার শুরুতে এক নারী পুলিশ কর্মীকে উপদূতাবাসের গলিতে খুঁজতে থাকেন। তাকে খুঁজে না পেয়ে উন্মত্ত হয়ে ওঠেন ওই পুলিশ সদস্য। তিনি হাতের কাছে থাকা এসএলআর বন্দুক দিয়ে এলোপাতাড়ি গুলি চালান। তবে ঠিক কত রাউন্ড গুলি চালিয়েছে ওই পুলিশ সদস্য তা নিয়ে এখনও সরকারিভাবে কোনো বিবৃতি দেয়া হয়নি। আত্মঘাতী ওই পুলিশ সদস্য চারদিন আগে উপহাইকমিশনের আউটপোস্টে ডিউটিতে জয়েন করেন বলে জানা গেছে। এখনও পর্যন্ত কারও সঠিক পরিচয় পাওয়া যায় নি।

প্রবাস খবর এর আরো খবর