বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস আজ

আজ ১৪ নভেম্বর, বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস। সারা বিশ্বের মতো বাংলাদেশেও জনসচেতনতার লক্ষ্যে দিবসটি পালিত হচ্ছে।
 
দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য বিষয় ‘আগামীতে নিজেকে সুরক্ষায় ডায়াবেটিসকে জানুন।’ অর্থাৎ ডায়াবেটিস সম্পর্কে ভালোভাবে জানতে পারলে একে প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ করা যায়। 
 
দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন। 
 
রাষ্ট্রপতি তার বাণীতে বলেন, প্রাত্যহিক জীবনে আধুনিকতা ও নগরায়ণের প্রভাবে আমাদের জীবনযাপন ও খাদ্যাভ্যাসে ব্যাপক পরিবর্তন ঘটছে এবং কায়িক পরিশ্রমের অভাবে ডায়াবেটিসের প্রকোপ দিনদিন বাড়ছেই। তাই ডায়াবিটিস থেকে সুরক্ষা পেতে ও এর ক্ষতিকর প্রভাব থেকে বাঁচতে হলে সকলকে ডায়াবেটিস প্রতিরোধ এবং নিয়ন্ত্রণের উপায়গুলো জানতে হবে। এ ছাড়া ব্যক্তিগত ও পারিবারিক সচেতনতাও এ ক্ষেত্রে খুবই জরুরি।
 
ডায়াবেটিস একটি প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণযোগ্য রোগ উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, কাজেই যাদের ডায়াবেটিস আছে এবং যাদের নেই উভয়কেই ডায়াবেটিস প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণের পদ্ধতিগুলো সম্পর্কে জানতে হবে এবং নিজেকে সুরক্ষার উদ্যোগ নিতে হবে। 
 
বিশেষজ্ঞদের উদ্ধৃতি দিয়ে তিনি বলেন, অতিরিক্ত ফাস্ট ফুড, চর্বিযুক্ত খাবার খেলে, শারীরিক পরিশ্রম ও নিয়মিত শরীর চর্চা না করলে, স্বাভাবিকের চেয়ে মাত্রাতিরিক্ত ওজন বেড়ে গেলে ডায়াবেটিস হতে পারে। ডায়াবিটিস রোগীদের নিয়মিত ব্যায়াম, সুষম খাদ্য খাওয়া, সুশৃঙ্খল জীবন-যাপন করা ছাড়াও চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী নিয়মিত ওষুধ ও ইনসুলিন গ্রহণ করতে হবে।
 
জনগণের মধ্যে এ সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বিভিন্ন সংগঠন নানা কর্মসূচি নিয়েছে। এ উপলক্ষে ডায়াবেটিক সমিতি দেশব্যাপী ডায়াবেটিস সম্পর্কিত সচেতনতামূলক পোস্টার, লিফলেট বিতরণ করছে। 
 
এ ছাড়া আজ রাজধানীতে সকাল সাড়ে ৮টায় শাহবাগ বারডেম কার পার্কিং থেকে রমনা পার্কের গেট পর্যন্ত রোড শো’র (প্ল্যাকার্ড হাতে সড়কের একপাশে অবস্থান কর্মসূচি) আয়োজন করা হয়েছে। সকাল ১০টায় বারডেম অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ও রোগীদের আলোচনা ও প্রশ্নোত্তর পর্ব এবং দুপুর ১২টায় বারডেম অডিটোরিয়ামে আলোচনা সভা। 
 
এ ছাড়া সকাল ৮-১১টা পর্যন্ত রমনা পার্কের গেট ও ধানমন্ডি রবীন্দ্র সরোবরসহ বিভিন্ন কেন্দ্রে বিনা মূল্যে ডায়াবেটিস রোগ নির্ণয় ও সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত আব্রাহাম কার্ডিয়াক হাসপাতালে হ্রাসকৃত মূল্যে হার্ট ক্যাম্প করা হবে। এতে রোগীদের হ্রাসকৃত মূল্যে নিবন্ধন, চিকিৎসা পরামর্শ ও ওষুধ দেওয়া হবে।

সর্বশেষ সংবাদ