সর্বশেষবাণিজ্য

কর্ণফুলী টানেল ৩ থেকে ৩.৫ মিনিটে অতিক্রম করুন

টানেলটি নদীর তলদেশ থেকে ১৮ থেকে ৩১ মিটার নিচে।

চট্টগ্রামে কর্ণফুলী টানেল নদীর তলদেশে নির্মিত দেশের প্রথম টানেলের দৈর্ঘ্য ৩ দশমিক ৩২ কিলোমিটার।

কর্ণফুলী টানেল

এটি 3 থেকে 3.5 মিনিটের মধ্যে অতিক্রম করা যাবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব। তোফাজ্জল হোসেন মিয়া। বুধবার সন্ধ্যায় তিনি টানেল পরিদর্শন করেন।

কর্ণফুলী টানেলে ঢোকার আগে তোফাজ্জল হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, তিন থেকে সাড়ে তিন মিনিটের মধ্যে সুড়ঙ্গটি অতিক্রম করা যাবে। কক্সবাজারের সঙ্গে যোগাযোগ সহজ হবে। এই টানেল শুধু দুটি উপকূলকে সংযুক্ত করবে না, এর মাধ্যমে একটি শহর থেকে শহরের ধারণা বাস্তবায়িত হয়েছে।

আগামী ২৮ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উদ্বোধন করবেন। দেশের প্রথম কর্ণফুলী টানেল নামকরণ করা হয়েছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে। উদ্বোধনের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে বলে জানিয়েছেন মুখ্যসচিব। তিনি বলেন, নিরাপত্তার জন্য দুটি পুলিশ ক্যাম্প নির্মাণাধীন রয়েছে। সব ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এছাড়াও, সিডিএ টানেলের পতেঙ্গা প্রান্তে যানজট নিরসনের জন্য একটি প্রকল্প শুরু করেছে। এরই মধ্যে টেন্ডার দেওয়া হয়েছে।

কর্ণফুলী টানেল

মুখ্য সচিবের পাশাপাশি টানেল প্রকল্প পরিচালক হারুনুর রশীদও সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন। তিনি বলেন, টানেলের কাজ শতভাগ শেষ হয়েছে। এটি সম্পূর্ণরূপে ব্যবহারযোগ্য। যাইহোক, 23 সেপ্টেম্বর, আমরা ফায়ার ব্রিগেড এবং পুলিশের সাথে সমন্বয় করে  জরুরি পরীক্ষা পরিচালনা করব। এই কাজ এখন বাকি। বাকি সব শেষ। এখানে গাড়িগুলো ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ৬০ কিলোমিটার বেগে চলতে পারে।

কর্ণফুলী টানেল নির্মাণ করছে চীনা ঠিকাদার চায়না কমিউনিকেশন, কনস্ট্রাকশন কোম্পানি লিমিটেড। নির্মাণ ব্যয় ১০ হাজার ৬৮৯ কোটি টাকা।

আরও পড়ুন

বঙ্গবন্ধু টানেলের দুই প্রান্তে ৩০০ কোটি টাকা ব্যয়ে

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button