সর্বশেষরাজনীতি

একটি মহল অনির্বাচিত সরকার আনার ষড়যন্ত্র করছে: সভানেত্রী

একটি মহল অনির্বাচিত সরকার

আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক একটি মহল নির্বাচন বানচাল করে অনির্বাচিত সরকার আনার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। নির্বাচনের পর আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসবে বুঝতে পেরেই তারা এই ষড়যন্ত্র করছে। তারা আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় দেখতে চায় না। সে কারণে নির্বাচন বানচাল করা গেলে একটি অনির্বাচিত সরকার ইচ্ছামতো নিয়ন্ত্রণ করতে পারবে। তিনি আরও বলেন, বিএনপি শেষ মুহূর্তে নির্বাচনে এসে ভোট নষ্ট করার ষড়যন্ত্র করতে পারে।

রবিবার সংসদ ভবনে আওয়ামী লীগের সংসদীয় দলের বৈঠকে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। সংসদ ভবনে সরকারি দলের সভাকক্ষে সংসদীয় দলের প্রধান শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে এক ঘণ্টার বেশি সময় ধরে এ বৈঠক হয়। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে। এতে বক্তব্য রাখেন মোতাহার হোসেন, শামীম উসমান, নূর উদ্দিন চৌধুরী নয়ন, কাজী কেরামত আলী, আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভী, রুবিনা আক্তার মীরা, সুবাস দত্ত প্রমুখ।

অনির্বাচিত
রবিবার আওয়ামী লীগের সংসদীয় দলের সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

সূত্র জানায়, প্রধানমন্ত্রী বলেন, জরিপের ভিত্তিতে যোগ্য ও জনপ্রিয় ব্যক্তিদের মনোনয়ন দেওয়া হবে। তিনি বলেন,অনির্বাচিত বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত ও জরিপ প্রতিবেদন অনুযায়ী মনোনয়ন দেওয়া হবে। যাকেই মনোনয়ন দেওয়া হোক, তার জন্য সবাইকে কাজ করতে হবে। তিনি বলেন, ‘আসন্ন জাতীয় নির্বাচন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সংগঠনকে শক্তিশালী করতে হবে। আমি প্রার্থী মনোনয়ন দেব, প্রার্থী কে তা দেখতে যাবেন না। যাকেই প্রার্থী করা হবে তাকে বিজয়ী করতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। বৈঠকে উপস্থিত সংসদ সদস্যরা হাত তুলে প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান মেনে চলার অঙ্গীকার করেন। কাউকে বিজয়ী করার দায়িত্ব নিতে পারিনি মন্তব্য করে শেখ হাসিনা বলেন, ভোট অবাধ ও সুষ্ঠু হবে। এই ভোটে সবাইকে বিজয়ী করতে হবে।

কাউকে জয়ী করার দায়িত্ব আমি নিতে পারি না। চেহারার ভিত্তিতে কাউকে মনোনয়ন দেব না। আমি জনপ্রিয় মানুষকে মনোনয়ন দেব। এখানে উপস্থিত সবাই মনোনয়ন দিতে পারেন। যাকে মনোনয়ন দেবো তার জন্য কাজ করতে হবে। মনোনয়ন হোক বা না হোক, নৌকা নিয়ে বিতর্ক করা যাবে না। নৌকার বিরোধিতাকারীদের রাজনীতি চিরতরে ধ্বংস হয়ে যাবে বলেও হুঁশিয়ারি দেন তিনি।

আওয়ামী লীগ সভাপতি তার বক্তব্যে নির্বাচন নিয়ে দেশি-বিদেশি ষড়যন্ত্রের কথা উল্লেখ করেন। একজন সংসদ সদস্য বলেন, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, নির্বাচন হলে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসতে পারে। এ কারণে দেশি-বিদেশি অনেক মানুষ নির্বাচনবিহীন অনির্বাচিত সরকার চায়। কারণ অনির্বাচিত সরকার থাকলে তাদের প্রভাব বিস্তার করা সহজ হয়ে যায়। তিনি বলেন, নির্বাচনে জয়ী হতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

অনির্বাচিত
প্রধানমন্ত্রী

নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলন করলে বাধা হয়ে দাঁড়াবে না বিএনপি : জানা গেছে, বৈঠকে বিএনপির চলমান আন্দোলন নিয়েও কথা বলেন আওয়ামী লীগ সভাপতি। তিনি আরও বলেন, বিএনপি নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলন করলে কোনো বাধা দেওয়া হবে না। “তারা প্রতিবাদ করতে চায়,” তিনি বলেছিলেন। সমস্যা নেই. আমরা থামব না. তবে অগ্নিসংযোগ ও ভাঙচুর করা যাবে না। আমরা সবাই মোকাবিলা করতে অভ্যস্ত। আমি আটকের সাথে মোকাবিলা করেছি। জামায়াত-বিএনপির মুখোমুখি হয়েছি। আমি আবার এটা করতে হবে. জানা যায়, সভায় কাজী কেরামত আলী জেলা আওয়ামী লীগের কঠোর সমালোচনা করেন।

তার ভাইকে সাধারণ সম্পাদক করার পর থেকে তাকে নির্যাতন করা হচ্ছে। সংসদ সদস্যদের এলাকায় গিয়ে সভা করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। তবে জেলা আওয়ামী লীগের কথা বললে তাদের অনুমতি ছাড়া কোনো সভা করা যাবে না। এমপি হয়েও এলাকায় যেতে পারছেন না কি-না এমন প্রশ্নও তোলেন তিনি। শামীম উসমান তার বক্তব্যে সকলকে পারস্পরিক বিরোধ ভুলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে আগামী নির্বাচনে বিজয়ী করে শেখ হাসিনাকে আবারো প্রধানমন্ত্রী করার আহ্বান জানান অনির্বাচিত। সভায় লক্ষ্মীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য নূর উদ্দিন চৌধুরী নয়ন বলেন, আমাদের আত্মত্যাগী নেতা-কর্মী রয়েছে।

তবে আসনগুলো অন্য দলের প্রার্থীদের দেওয়া হয়েছে। আমরা চাই আমাদের চারটি আসন (লক্ষ্মীপুর জেলার চারটি সংসদীয় আসন) আওয়ামী লীগের কাছে যাক। আমরা সবাই ঐক্যবদ্ধ। আশা করছি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে বিজয়ী হবে। টানা ১৫ বছর দেশ ক্ষমতায় থাকায় আওয়ামী লীগ সরকারের উন্নয়নের কথা জানাতে মাঠ পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী। বিএনপির অগ্নিসংযোগের ছবি জনগণকে দেখানোরও নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী। শেখ হাসিনা বলেন, আওয়ামী লীগ যখন ক্ষমতায় থাকে, জনগণের পাশে থাকে, জনগণের উপকার হয়। আমরা সবার জন্য কাজ করব – এটি আমাদের প্রতিশ্রুতি। জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলো গড়ে তুলব। এ সময় তিনি আরও বলেন, তৃতীয় শক্তিকে ক্ষমতায় এনে দেশকে ধ্বংস করার পরিকল্পনা চলছে এবং অনির্বাচিত সরকার আনার ষড়যন্ত্র করছে একটি মহল

 

আরও পড়ুন
বিএনপি সন্ত্রাসী হলে আওয়ামী লীগ সন্ত্রাসের জনক -ফখরুল

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button