জাতীয়সর্বশেষ

আলু, ডিম ও পেঁয়াজে আগুন ধরেছে, সবজি কিনতে হচ্ছে চড়া দামে

সবজি কিনতে হিমশিম খাচ্ছে সাধারণ ক্রেতা

ক্রেতারা এখন সবজি কিনতে হিমশিম খাচ্ছেন। কোন সবজি কিনবেন?কপালে চিন্তার ভাঁজ! আলু, ডিম ও পেঁয়াজে আগুন ধরেছে, কারণ, কলা ও পেঁপে ছাড়া সব সবজির দামই এখন নাগালের বাইরে। এর মধ্যে কিছু সবজি প্রতি কেজি ১০০ টাকা ছাড়িয়েছে। এ অবস্থায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে নিম্ন আয়ের মানুষ। শুধু মাংস-মাছ নয়, সবজি কেনাও তাদের জন্য কঠিন হয়ে পড়েছে।

আলু, ডিম ও পেঁয়াজে আগুন
সাধারণ ক্রেতা

এদিকে দাম নির্ধারণ করেও ডিম, আলু ও পেঁয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণ করতে পারেনি সরকার। তিনটি পণ্যই নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে অনেক বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে। ভোক্তা প্রশ্ন? তাহলে দাম ঠিক করে লাভ কী? ব্যবসায়ীরা বলছেন, গত কয়েক বছরে সবজির দাম তেমন বাড়েনি। মূলত বৈরী আবহাওয়ায় দেশের অনেক স্থানে আগাম সবজির ফসল নষ্ট হয়ে যাওয়ায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। রাজধানীর বাজারে সবজির সরবরাহ কমেছে। এখন পুরোদমে শীতের সবজি বাজারে আসার জন্য অপেক্ষা করতে হবে।

শুক্রবার রাজধানীর নিউমার্কেট, কাওরানবাজার ও তুরাগ এলাকার নতুন বাজার ঘুরে দেখা যায়, গত এক সপ্তাহে আবারও বেড়েছে সব ধরনের সবজির দাম। সবজি কিনতে এক দোকান থেকে আরেক দোকানে দরদাম করতে দেখা গেছে ক্রেতাদের। গতকাল বাজারে বিভিন্ন সবজির মধ্যে মান অনুযায়ী বেগুনের দাম ছিল ১০০থেকে ১৪০টাকা, টমেটোর দাম ১০০থেকে ১২০টাকা, বাঁধাকপির দাম ৯০টাকা। ৮০টাকা, কচুমুখী ৯০থেকে ১০০টাকা, করলা ৯০থেকে ১১০টাকা, কাঁচা মরিচ ২০০থেকে ২৪০ টাকা, মিষ্টি কুমড়া ৫০টাকা কেজি। এছাড়া কম দামের সবজির মধ্যে পেঁপে বিক্রি হচ্ছে ৩০ থেকে ৪০ টাকা কেজি দরে। আর কাঁচের জিনিস বিক্রি হচ্ছে ৩৫ থেকে ৪০ টাকায়। একটি বোতল করলা ৭০ থেকে ৮০ টাকা এবং ছোট আকারের ফুলকপি ও বাঁধাকপি বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকায়।

সরকারের কৃষি বিপণন বিভাগ কৃষিপণ্যের খুচরা মূল্যের দৈনিক প্রতিবেদন তৈরি করে। তাদের প্রতিবেদন অনুযায়ী, প্রতি কেজি বেগুনের দাম বেড়েছে ৬৬.৬৭ শতাংশ, কাঁচা পেঁপে ৪০ শতাংশ, মিষ্টি কুমড়ার ২০ শতাংশ, করলার দাম বেড়েছে ৪২.৬৬ শতাংশ, পটলের দাম বেড়েছে ১১৩.৩৩ শতাংশ, বোতল করলা ৫২.৩৮ শতাংশ এবং বোতল করলা ৫২.৩৮ শতাংশ। দাম বেড়েছে ৫০ শতাংশ, চিচিঙ্গায় ৩৬ দশমিক ৩৬ শতাংশ, কাঁচা মরিচের দাম বেড়েছে ১৯২ দশমিক ৩১ শতাংশ।

সবজির উচ্চমূল্যে ক্ষুব্ধ ক্রেতারা। গতকাল রাজধানীর নিউমার্কেটের বাজারে আসা কবিরুল ইসলাম বলেন, আগে কখন সবজির দাম এত বেশি ছিল জানি না। তিনি বলেন, আমাদের মতো মধ্যবিত্ত মানুষ সবজি কিনতে হিমশিম খাচ্ছে। এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ কাঁচামাল সমিতির সভাপতি মো. ইমরান মাস্টার বলেন, প্রতিকূল আবহাওয়ায় দেশের অনেক স্থানে শীতকালীন সবজির ফসল নষ্ট হয়েছে। যার প্রভাব পড়েছে বাজারে। তিনি বলেন, শীতকালীন সবজি বাজারে আসতে শুরু করলেই দাম কমবে।দাম নির্ধারণ করেও নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না ডিম, আলু ও পেঁয়াজের বাজার।

বাজার নিয়ন্ত্রণে সরকার গত ১৪ সেপ্টেম্বর ডিম, আলু ও পেঁয়াজের দাম নির্ধারণ করলেও তা বাস্তবায়ন হয়নি। অন্যদিকে দাম বাড়ছে অনিয়ন্ত্রিতভাবে। কিন্তু তিনটি পণ্যের উৎপাদন খরচ ও মুনাফা যোগ করে দাম নির্ধারণ করা হয়। নির্ধারিত দর অনুযায়ী খুচরা বাজারে আলু ৩৬ টাকা কেজি, ডিমের কুসুম ৪৮ টাকা এবং দেশি পেঁয়াজ ৬৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হবে বলে আশা করা হচ্ছে। কিন্তু সরকারি বিপণন সংস্থা ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) বাজারদরের তথ্য বলছে, আলু ৪৫ থেকে ৫০ টাকা কেজি, দেশি পেঁয়াজ ৯০ থেকে ১০০ টাকা এবং ডিমের কুসুম ৫০ থেকে ৫৩ টাকা কেজি দরে। আগামীকাল পুঁজিবাজার। কৃষি বিপণন বিভাগের তথ্য অনুযায়ী, গত এক বছরে আলুর দাম বেড়েছে ৭২ দশমিক ৭৩ শতাংশ এবং দেশি পেঁয়াজের দাম ৯০ দশমিক ৪৮ শতাংশ। গতকাল বাজারে দেখা গেছে, দেশি পেঁয়াজের পাশাপাশি বেড়েছে আমদানি করা পেঁয়াজের দামও। এক সপ্তাহের ব্যবধানে পাঁচ টাকা বেড়ে প্রতি কেজি ৭০ থেকে ৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। দাম গত বছরের তুলনায় ৫০ শতাংশ বেশি।

আলু, ডিম ও পেঁয়াজে আগুন

এ প্রসঙ্গে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এএইচএম সফিকুজ্জামান গতকাল ইত্তেফাককে বলেন, রাজধানীর কয়েকটি বাজারে প্রান্তিক চাষিরা ১২ টাকায় ডিম বিক্রি শুরু করেছেন। কিন্তু এ খাতের করপোরেট প্রতিষ্ঠানগুলো এগিয়ে না এলে সুফল পাওয়া যাবে না। তিনি বলেন, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় কর্পোরেট প্রতিষ্ঠানগুলো নিয়ন্ত্রণ করে। এমন পরিস্থিতিতে তাদের উদ্যোগ নিতে হবে। তাছাড়া ফিড মিলগুলো ফিডের ওপর অতিরিক্ত মুনাফা করছে। ট্যারিফ কমিশন ফিড রেট নির্ধারণে কাজ করছে। পশুখাদ্যের দাম কমলে ডিমের দামও কমবে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, দেশি পেঁয়াজের মজুদ শেষ হতে চলেছে। দেশের বাজারে এখন এক কেজি দেশি পেঁয়াজের দাম ৮০ টাকা। কিন্তু সমস্যা হলো দেশি পেঁয়াজের দাম বেড়েছে এবং আমদানি করা পেঁয়াজের দাম বেড়েছে। এটা বৃদ্ধি করা উচিত নয়

আরও পড়ুন
রংপুরে আলু,পেঁয়াজের বাজার আবার অস্থির

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button